টেকনোলোজি

K35 Wireless Microphone Review in Bangla

Contents

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন বন্ধুরা? আপডেট গাইডস এর আজকের এই k35 ওয়ারলেস মাইক্রোফোন রিভিউতে আপনাকে স্বাগতম.

k8, k9 এর পর k সিরিজ নিয়ে আসল আরো একটি নতুন ওয়ারলেস মাইক্রোফোন যার নাম k35.

পুর্বের মাইক্রোফোন দুটি নির্দিষ্ট কিছু ডিভাইসে সাপোর্ট করত যেমন usb type c যুক্ত মোবাইল ও iphone এ সাপোর্ট করত , কিন্তু k35 এর এ নতুন মাইক্রোফোনটি অবশেষে সকল সীমাবদ্ধতা কাটিয়ে উঠতে পেরেছে। কেননা,
এটি 3.5mm mic in যুক্ত সকল Android,  ios ও dslr-mirror camera গুলোতে সাপোর্ট করে।
এককথায়,
বাজেট ফ্রেন্ডলি ওয়ারলেস মাইক্রোফোন হিসেবে এটি বেশ ভালই বলা চলে।

k35 Wireless Microphone Price in Bangladesh 2024

এ k35 মাওক্রোফোনটি দুটি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

  • একটি- k35 ডুয়েল।
  • আরেকটি- k35 সিংগেল।

আমার হাতে যে মাইক্রোফোনটি দেখছে এটি হচ্ছে k35 ডুয়েল ভার্সন।
যারা ডুয়েল কনভার্সন করে থাকেন ও ইন্টার্ভিউ টাইপের ভিডিও শুট করে থাকেন তাদের জন্য এ k35 ডুয়েল ভার্সনটি বেস্ট।
অন্যদিকে যারা, সাধারণ ভিডিও কন্টেন্ট ক্রিয়েটর অর্থাৎ একা নিজেই ভিডিও বানিয়ে থাকেন তাদের জন্য k35 সিংগেল ভার্সনটি যথেষ্ট।

তাছাড়া দুটো ভার্সনের দামের মধ্যেও পার্থক্য রয়েছে।

k35 Wireless Microphone Price in Bangladesh: k35 সিংগেল ভার্সনটি মার্কেটে ও বিভিন্ন অনলাইন শপে ৮০০-১০০০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে, অন্যদিকে k35 ডুয়েল ভার্সনটি পাওয়া যাচ্ছে ১১০০ থেকে ১৫০০ টাকার মধ্যে।

তো বন্ধুরা চলুন, এ k35 ডুয়েল ভার্সন মাইক্রোফোনটি আনবক্সিং করা যাক।

এ মাইক্রোফোনটির বক্স খুললেই পেয়ে যাব ১টি রিসিভার, এটি যেহেতু ডুয়েল ভার্সন তাই পেয়ে যাচ্ছি ২টি ট্রান্সমিটার। এরই সাথে পেয়ে যাচ্ছি মাইক্রোফোনটি চার্জ করার জন্য একটি usb to type c ক্যাবল।
দেখতে ছোটখাটো ও বেশ কিউট এ মাইক্রোফোনটি abs ম্যাটেরিয়াল প্লাস্টিক বিল্টইন হওয়ায় ওজনে বেশ হালকা তাই যেকোনো ডিভাইসে এটি ব্যবহার করা বেশ সুবিধাজনক।

k35 dual মাইক্রোফোনের আজকের দাম

এ মাইক্রোফোন এর রিসিভারে রয়েছে 3.5mm audio jack তাই যেকোনো স্মার্টফোনে ও ক্যামেরাতে এটি ব্যাবহারের সুবিধা রয়েছে। যাদের ফোনে 3.5mm audio port নেই শুধু usb type c port রয়েছে তারা চাইলে কনভার্টার এর মাধ্যমে ফোনটিতে এ মাইক্রোফোন ব্যবহার করতে পারেন।

k35 ওয়ারলেস ব্লুটুথ মাইক্রোফোন এর সুবিধা

k সিরিজের এবারের এ মাইক্রোফোনের রিসিভারে বিল্ট ব্যাটারি রাখা হয়েছে যা একটি বাড়তি সুবিধা। পুর্বের k সিরিজের মাইক্রোফোনে কিন্তু এ সুবিধা ছিল না, তাই পূর্বের ওইসব মাইক্রোফোন মোবাইল ডিভাইস থেকে পাওয়ার নেওয়ার প্রয়োজন হত। চার্জ দেওয়ার জন্য রিসিভারটির পেছনে ১টি type c port রাখা হয়েছে এ মাইক্রোফোনটি রিসার্জ করার জন্য।
ফ্রন্ট সাইডে রাখা হয়েছে একটি পাওয়ার বাটন যেটি প্রেজ করে ধরলে রিসিভারটি চালু হবে এবং এর উপরের দিকে ১টি led indicator রাখা রয়েছে যা দেখে এটি হয়েছে কিনা তা বুঝতে পারবেন।

আর এ মাইক্রোফোনের ট্রান্সমিটারেও বিল্ট ইন ব্যাটারি রয়েছে তাই রাইট সাইডে ১টি usb type c port রয়েছে রিচার্জ করার জন্য। ব্যাক সাইডে ক্লিপ রয়েছে যার ফলে খুব সহজে টিশার্ট বা শার্টে ক্লিপ করা যায়। এছাড়াও ব্যাক সাইডেও একটি পাওয়ার বাটন রয়েছে যার মাধ্যমে ট্রান্সমিটারটি চালু করা হয়। ফ্রন্ট সাইডে ১টি led indicator রয়েছে যা দ্বারা মাইক্রোফোনটি চালু কিনা তা বুঝা যায়।
মুল মাইকহেড-টি রয়েছে উপরের দিকে এবং মাইকটি উইন্ডশীল্ড ফোম দিয়ে ঢাকা থাকে যা আশেপাশের নয়েজ রিডিউস করতে কার্যকর ভুমিকা রাখে।

মাইক্রোফোনটির ট্রান্সমিটার ও রিসিভারের ব্যাটারি ব্যাকাপে আমরা পার্থক্য দেখতে পেয়েছলাম। দেখা গিয়েছে
রিসিভারে ও ট্রান্সমিটারে ২ ঘন্টার আশেপাশে ব্যাটারি ব্যাকাপ পাওয়া যাচ্ছিল। ইউজের সময় রিসিভারটিতে দুই ট্রান্সমিটারের লোড একসাথে পড়ে তাই রিসিভারের চার্জ একটু আগেই শেষ হতে দেখা যায়। তবে একটি ট্রান্সমিটার এর সাথে রিসিভারটি ব্যাবহার করলে প্রায় আড়াই ঘন্টার মত ব্যাটারি ব্যাকাপ পাওয়া যাচ্ছিল।

সাউন্ড টেস্ট দেখতে ভিডিওটি সম্পূর্ণ দেখতে থাকুন।

রিভিউ

k রিসিজ এর এ মাইক্রোফোন এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে plug & play, কারণ এগুলো ব্যবহার করতে কোনো ঝামেলা পোহাতে হয় না। যেহেতু  ওয়ারলেস, তাই তারের কোনো ঝামেলা থাকছে না।

এ মাইক্রোফোনটির কানেকটিংও বেশ ফাস্ট।

ব্যবহারের নিয়মাবলী:

তারবিহীন এ মাইক্রোফোনটির দুটি অংশ. এক অংশ হচ্ছে tr বা ট্রান্সমিটার,  আরেক অংশ হচ্ছে রিসিভার।
কানেকটিং করার জন্য একই সাথে যাস্ট- রিসিভারে পাওয়ার বাটনটি প্রেস করে ধরতে হবে এবং ট্রান্সমিটারে পাওয়ার বাটনটি প্রেস করে ধরতে হবে। তাহলে ট্রান্সমিটার ও রিসিভার একে অপরের সাথে কানেক্টিং হয়ে যাবে।

এই মাইক্রোফোন এর বিশেষ বৈশিষ্ট্যগুলো হচ্ছে:

আশেপাশের নয়েজগুলো বেশ ভালভাবে রিডিউস করতে পারে এই মাইক্রোফোন।

ক্রিস্টাল ক্লিয়ার সাউন্ড আউটপুট পাওয়া যাচ্ছে।

ওভারঅল সাউন্ড কোয়ালিটি ঠিকই মনে হচ্ছে।

এটা ক্যামেরা থেকে মোবাইলে আরও ভাল সাউন্ড দিচ্ছে।

Conclusion

সব মিলিয়ে ফাইনালি বলব-
আপনারা যারা অল্প টাকায় বাজেট ফ্রেন্ডলি একটি ওয়ারলেস মাইক্রোফোন চাচ্ছেন, যে মাইক্রোফোনটি কোনো হ্যাসেল ছাড়া খুব সহজে ব্যবহার করা যায় তাদের জন্য এটি বেস্ট চয়েজ হতে পারে।

এ ছিল আজকের ভিডিও। আশাকরি ভিডিওটি ভাল লেগেছে। যদি ভাল লাগে অবশ্যই লাইক করবেন, কমেন্ট করবেন আর আপনার মতামত জানাবেন।
আমাদের এ ইউটিউব চ্যানেলটি নতুন খোলা হয়েছে, কেবল আপনাদের সাপোর্ট পেলেই এগিয়ে যাব বহুদূর। তাই আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি সাসক্রাইব করতে ভুলবেন না।
ভাল থাকবেন,নিজের ও পরিবারের যত্ন নিবেন। সবার মাঝে ভালবাসার উচ্ছাস ছড়িয়ে সুন্দর পৃথিবী গড়ার প্রত্যয় নিয়ে এবারের মত আল্লাহ হাফেজ.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker