টেকনিকাল এসইও

(10) Google সার্চ কনসোলে ওয়ার্ডপ্রেস ও ব্লগার ওয়েবসাইটের জন্য xml SiteMap সাবমিট করার পদ্ধতি

সাইটম্যাপ ২ধরনের হয়-
(১) html sitemap
(২) xml sitemap
আজ আমরা গুগল সার্চ কনসোল এর ভেতর sitemap এ xml সাইটম্যাপ কিভাবে বানাতে হয় তা বিস্তারিত জানব।

Xml Sitemap কি?

xml sitemap হচ্ছে একটা নির্দেশনা যেটি দ্বারা আপনার ওয়েবসাইটের প্রজগুলোকে গুগলে ইন্ডেক্স করায় সহায়ক হবে। এজন্য Google Search Console এ ডুকে এর ভেতর থাকা sitmap অপশনে সাধারণত (sitename).com/sitemap.xml এক্সটেনশন টেক্সট দ্বারা ওয়েবসাইটকে ইন্ডেক্স করার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

full website তৈরির আগে ওবেবসাইটকে গুগলে ইন্ডেক্সিং করা কখনো উচিৎ নয়। একটা ওয়েবসাইট তৈরির সব কাজ শেষ করার পর xml সাইট ম্যাপ add করলে ভালো হয়। অর্থাৎ গুরুত্বপূর্ণ সব পেজ ক্রিয়েট করার পর কিছু পরিমাণ পোস্ট পাবলিশ করার পর ওয়েবসাইট এর xml sitemap যুক্ত করাটাই সবচেয়ে ভাল হয়।

xml sitemap সতর্কতা:

১. robot.txt ফাইল দ্বারা আপনার ওয়েবসাইট ব্লক কিনা চেক করে নিবেন। ব্লক করা থাকলে সাইট ইন্ডেক্স হবে না।
(sitename).com/robots.txt এইভাবে দেখুন আপনার সাইট ব্লক কি না,,
২. ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের setting এ search engine discourage করা থাকলেও সাইট ইন্ডেক্স হবে না। তাই এটিও চেক করে নিবেন। So, at first check this option…go to wordpress>reading>search engine visibility

একটা simple সাইটম্যাপের উদাহরণ-
(sitename).com/sitemap.xml

ওয়ার্ডপ্রেস ওয়বসাইটে xml সাইটম্যাপ তৈরি করা

বিভিন্ন ধরনের সাইটম্যাপ প্লাগিন আছে।
এক্ষেত্রে Google XML Sitemaps নামের এ প্লাগিন দিয়ে অতি সহজে আপনার সাইটের জন্য সাইটম্যাপ বানাতে পারেন।
তবে যাদের সাইটে yoast seo প্লাগিন install করা আছে তারা ঐটা দিয়েও সাইটম্যাপ বানাতে পারবেন, তাদের আর নতুন করে আলাদা কোনো সাইটম্যাপ বানানোর প্লাগিন install দিতে হবে না।
আর ওয়েবসাইটে শুধু শুধু প্লাগিন বাড়িয়ে সাইট ভারি করারও দরকার নাই। তাই আমাদের যাদের yoast seo প্লাগিন install করা আছে তারা এটা দিয়েই সাইটম্যাপ বানাব।

Sitemap ভেরিফিকেশন পদ্ধতি:
yoast seo plugin দিয়ে নিচের লিংকের মাধ্যমে খুব সহজে ভেরিফিকেশন করতে পারবেনঃ-

wordpress সাইটের জন্য xml sitemap বানানোর ধাপসমুহ:

ধাপ ০১: প্রথমে, আপনার website এর wp-admin ড্যাশবোর্ডে ডুকুন.
ধাপ ০২: তারপর, ড্যাশবোর্ডের plugins > add new plugin এ গিয়ে সার্চ বাক্সে গিয়ে সার্চ করুন yoast seo লিখে।
ধাপ ০৩: yoast seo প্লাগিনটা install করুন এবং activate করুন।
ধাপ ০৪: seo > dashboard এর feature অপশনে advance setting pages টা save করে নিবে।
ধাপ ০৫: এবার, seo এর xml sitemaps এ প্রবেশ করুন।
ধাপ ০৬: user sitemap setting টা enable করে নিবেন।
জেনে রাখুন, কোনো পোস্ট যদি সাইটম্যাপ থেকে বাদ দিতে চান তা excluded posts এ আইডি গুলো দিবেন।
ধাপ ০৭: ক্যাটাগরি অন করতে চাইলে texonomies তে গিয়ে অন করতে হবে।
ধাপ ০৮: এবার, general এ ফিরে আসব। দেখবেন xml sitenap লিখা আছে। ঐটায় ক্লিক করেন। তাহলে ঐখানেই আমাদের xml sitemap পেয়ে যাবেন। খেয়াল করুন- ডোমেন নেম এর পরের / এর পরের post,page,category এর পুরোটা তিনটা আলাদা আলাদা অংশ আছে। এখন, তা লাগবে।
ধাপ ০৮: এবার Google Search Console এ প্রবেশ করব।  / এর পরের post,page,category গুলো আলাদা আলাদা প্রত্যেকবার গুগল সার্চ কনসোল এর sitemap এ পেস্ট করে save দেব।
ব্যাস হয়ে গেল।
yap, এখন থেকে post,page,category গুলো অটোমেটিক সাইটম্যাপে আপডেট হবে।

অপ্রয়োজনীয় কথা-
Search engine গুলোতে Site Submit করতে হবে। এজন্য যা করতে হয়-
# Google সাবমিট এর জন্য google search console ব্যবহার
# all search engjne এর জন্য-
# For site url submit-

সব শেষে
Site submit করার পর কোন  keyword কত নাম্বার Position এ আছে তা ট্রাক/check করার জন্য-
# google search consol- performance-position
# geo ranker


কিভাবে Google search console এ blogger সাইটম্যাপ সাবমিট যুক্ত করবেন তার গাইডলাইন ও টিউটোরিয়াল

ব্লগারের Google Search console এ xml সাইটম্যাপ(sitemap) সাবমিট করার জন্য দুই পার্টে কাজ করতে হয়।
১ম পার্টে, property যুক্ত করা।
২য় পার্টে, sitemap যুক্ত করা।

blogger সাইটের জন্য xml sitemap বানানোর ধাপসমুহ:

ধাপ ০১: প্রথমে আপনার GMail লগিন করা অবস্থায় Google Search console এ প্রবেশ করুন।

ধাপ ০২: খালি বাক্সে আপনার ওয়েবসাইটের লিংক বসিয়ে add property তে ক্লিক করুন।
ধাপ ০৩: property টা varify করার জন্য alternative method এ ক্লিক করুন এবং html tag সিলেক্ট করুন।

ধাপ ০৪: এখন, html tag সিলেক্ট করার পর যে html meta tag দেওয়া হবে তা কপি করে রাখুন।

ধাপ ০৫: এবার, আপনার ব্রাউজারে নতুন আরেকটি ট্যাব চালু করুন এবং আপনার ব্লগারের ড্যাশবোর্ডে theme > edit html এ ডুকে template এর <head> ট্যাগের ঠিক নিচে html meta tag টি পেস্ট করুন। এরপর save theme এ ক্লিক করে template টি save করুন।
ট্রিকস: <head> ট্যাগ খুজে না পেলে ctrl+F চেপে <head> লিখে সার্চ করলে তা পেয়ে যাবেন।

ধাপ ০৬: এবার আবার আপনার ব্রাউজারের পূর্বের ট্যাবে ফিরে এসে varify বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ ০৭: এখন Google Search console এর
ড্যাশবোর্ডে ডুকে add sitemap এ ক্লিক করে খালি বাক্সে নিচের কোডটি বসিয়ে submit sitemap এ ক্লিক করুন।

ধাপ ০৮: ব্যাস আপনার কাজ হয়ে গেসে। ২৪-৪৮ ঘন্টা অপেক্ষা করুন। এর কম সময়ও লাগতে পারে। এরপর থেকে গুগল এর বট আপনার সাইটকে crawl করা শুরু করবে এবং গুগল সার্চ ইঞ্জিনে আপনার সাইটের কন্টেন্ট/ পোস্টগুলো index হলে সেগুলো পাওয়া যাবে।

atom.xml?redirect=false&start-index=1&max-results=150


Google search console এ গিয়ে

ব্লগারে Google search console এর xml সাইটম্যাপ তৈরি করার ওয়েবসাইট টুলস-
অথবা,
# সাইটম্যাপ তৈরি করার সফটওয়্যারটিও ব্যবহার করতে পারেন-

বি:দ্র:
আপনার ওয়েবসাইটকে google sitemap এ submit করার সময় www ভার্সন ও non www ভার্সন উভয় ভার্সনই সাবমিট করতে ভুলবেন না।

sitemap যুক্ত করার সুবিধা:

খুব সহজ ভাষায় বলতে গেলে, সাইটম্যাপ যুক্ত করলে গুগল এর বট/রোবট খুব সহজে আপনার ওয়েবসাইট এর পেজগুলো ক্রল করবে, এতে গুগল সার্চ রেজাল্টে আপনার ওয়েবসাইট প্রদর্শিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker