Others

পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড একাউন্ট — কার্ড কিভাবে পাবেন বিস্তারিত গাইডলাইন

প্রশ্নঃ পেওনিয়ার কি?
উত্তরঃ পেওনিয়ার হচ্ছে একটি ভার্চুয়াল একাউন্ট। যারা অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং কাজের সাথে যুক্ত থাকে তাদের সবাই এ ধরনের ভার্চুয়াল একাউন্ট প্রয়োজন হয়।
বাংলাদেশ থেকে মাস্টার কার্ড কিভাবে করব, ফ্রি ইন্টারন্যাশনাল ভার্চুয়াল মাস্টার কার্ড পাওয়ার উপায়, একাউন্ট খোলার নিয়ম সহ সব ধরনের খুঁটিনাটি বিষয় নিয়ে এ আর্টিকেল থেকে জানব।

পেওনিয়ার একাউন্ট খোলার নিয়ম

পেওনিয়ার হচ্ছে একটি অনলাইন ভার্চুয়াল কার্ড। অনেকের প্রশ্ন— Mastercard কিভাবে পাব?
মাস্টার কার্ড পাওয়ার জন্য ১মে আপনাকে অনলাইনে ১টা একাউন্ট খুলে নিতে হবে। যারা নতুন একাউন্ট খুলে তাদেরকে পেওনিয়ার এর রেফারেন্স লিংক শেয়ারে প্রতি আইডি থেকে ২৫$ পাওয়া যায়। তবে শর্ত/উপায় হচ্ছে- যে নতুন একাউন্ট খুলছে তার ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস/ ক্লাইন্ট থেকে 1000$ transaction হওয়ার পর এ বোনাস পাবেন। মনে রাখবেন ডলার বাই-সেল করা পেয়নিয়ার এর আইন বিরুদ্ধ। এর জন্য যেকোনো সময় আপনার একাউন্ট ব্লক হয়ে যেতে পারে।
Mastercard কিভাবে পাব পেওনিয়ার একাউন্ট খোলার নিয়ম
Mastercard কিভাবে পাব পেওনিয়ার একাউন্ট খোলার নিয়ম

সমস্যা ১:
প্রায় বিভিন্ন গ্রুপে দেখি অনেকে নিজের পেয়োনিয়ার একাউন্ট সমস্যার সমাধান এর জন্য পোস্ট দিয়ে থাকেন।  কারো টাকা পেনডিইং অবস্থায় রয়েছে, কারো ডকুমেন্ট এপ্রুভড হয়নি, কারো মাস্টার কার্ড টি পেনডিইং  এপ্রুভআল রয়েছে, ব্যাংক স্টেটমেনট নিয়ে সমস্যায়, এড্রেস ভেরিফিকেসান এ সমস্যা, পেওনিয়ার এ  কল দিলে জইন হইতে পারিনা লাইভ চ্যাট এ জয়েন্ট হইতে পারিনা আসলে আরও অনেক সমস্যা অনেক প্রশ্ন রয়েছে সবার মনে।বিশেষ করে নতুন ইউজার দের।  তাই এই সকল সমস্যার সমাধান এর জন্য নিজের ক্ষুদ্র প্রচেষ্টায় কিছু লেখার চেষ্টা করেছি।

সমস্যা ১-  পেমেন্ট পেনডিইং অবস্থায় থাকা
আমরা সকলে জানি শনি রবি বার ব্যাংক বন্ধ থাকার কারণে আমাদের পেমেন্ট টি পেনডিইং অবস্থায় থাকে এবং কয়দিন যাবত পেওনিয়ার এর সার্ভার ডাউন থাকতেসে তাও এক সমস্যা হতে পারে।  তবুও যদি আপানার ব্যাংক ডেইস এ পেনডিইং থাকে তাহলে আপনি তাদের সাথে যোগাযোগ করুন তারা আপনাকে লাইন এ রেখেই আপনার সমস্যার সমাধান করে দেবে।

সমস্যা ২-  ডকুমেন্ট এপ্রুভড হয়নি
বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ক্ষেত্রে অ্যাকাউন্ট খোলার সময় কারো ক্ষেত্রে দেখা গেল আইডি কার্ড চেয়েছে আবার কারো ক্ষেত্রে আইডি কার্ড এবং কারেন্ট বিল/অন্যান্য ডকুমেন্ট চেয়ে থাকে।  আপনার থেকে যেটি চাওয়া হবে আপনি সেটি আপলোড দিয়েন খুব সুন্দর ভাবে ছবি তলে অথবা স্কান করে।  ঘাবড়ানোর কোন বিষয় নাই যে আপনার থেকে শুধু আইডি কার্ড কেন চাওয়া হইসে।  আপনার কোন ডকুমেন্ট তাদের লাগলে তারা নিজেয় আপনাকে নোটিফিকেশান দিয়ে জানাবে।

সমস্যা ৩- ডকুমেন্ট এপ্রুভড হওয়া না পর্যন্ত টাকা তুলা যাবে কি না
এক কথায় আপনি নিশ্চিন্তে আপানার টাকা আপনার নিকটস্থ ব্যাংক এ উইথদ্রা দিতে পারবেন।  ঘাবড়ানোর কোন বিষয় না নিশ্চিন্তে লেন্পদেন করতে পারবেন।

সমস্যা ৪- মাস্টার কার্ড কখন দিতে পারব অর্ডার
আপনি যখন কোন মার্কেট প্লেস থেকে ১০০$ উইথদ্র দিবেন পেওনিয়ার এ তখনি আপনি মাস্টার কার্ড টি অর্ডার দিতে পারবেন। এবং সেই টাকাটি আপনার অ্যাকাউন্ট এই থাকবে উইথদ্র দিতে পারবেন সেই ১০০$ টি।  কোন ক্লাইনট থেকে পেমেন্ট রিসিভ করলে আপনি অর্ডার দিতে পারবেন না মাস্টার কার্ড টি।

সমস্যা ৫- মাস্টার কার্ড টি পেনডিইং এপ্রুভআল রয়েছে
আপনি যখন মাস্টার কার্ড টি দিবেন অর্ডার তখন সেটি পেনডিইং অবস্থায় থাকবে তারা সময় নিয়ে আপনার আইডি টি চেক করবে তখনি তারা আপনার স্মার্ট কার্ড এবং ব্যাংক স্টেটমেনট/ অন্যান্য ডকুমেন্ট চেক করবে সব কিছু ঠিক থাকলে তারা আপনাকে এড্রেস ভেরিফিকেসন এর জন্য বলবে তখন আপনি সুন্দর করে ব্যাংক ব্যাংক স্টেটমেনট এর ছবি তলে / স্কেন করে PDF করে আপলোড দিয়েন।  যদিও তারা ২/৪ দিন এ আপ্প্রভ না করে তাহলে লাইভ চ্যাট এ কথা বললে লাইন এ রেখেয় তারা সমস্যার সমাধান করে দেবে।

সমস্যা ৬- ব্যাংক স্টেটমেনট নিয়ে সমস্যা
ব্যাংক এ গেলে/অনলাইনে ব্যাংকিং এর ওয়েবসাইট এ গেলেই স্টেটমেনট টি দিয়ে দেবে প্রিন্ট করে সুন্দর করে ছবি তলে/স্কেন করে সকল পেজ এর PDF করে সুন্দর ভাবে আপলোড দিবেন।

সমস্যা ৭- এড্রেস ভেরিফিকেসান এ সমস্যা
অনেক সময় আপনার পেওনিয়ার এ দেওয়া এড্রেস এবং ব্যাংক স্টেটমেনট এ দেওয়া এড্রেস একি থাকেনা তখন পেওনিয়ার দেখলে সেটি এপ্রুভ করেনা।  তাই ব্যাংক স্টেটমেনট আপলোড দেওার পূর্বে ব্যাংক স্টেটমেনট অনুযায়ী আপনার পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট এর এড্রেস টা চেক করে নিয়েন যদি একি না থাকে তাহলে পেওনিয়ার এ এড্রেস টা এডিট করে নিয়েন তারপর ব্যাংক স্টেটমেনট টি আপলোড দিয়েন।

সমস্যা ৮- পেওনিয়ার এ কল দিলে জইন হইতে পারিনা অথবা লাইভ চ্যাট জয়েন্ট হইতে পারিনা
লাইভ চ্যাট ছাড়া আমি কখনো কল এ কথা বলেনি সাপোর্ট এ কিন্তু কল এ কথা বলাটা অনেক এক্সপেন্সিভ হয়ে উঠে তাই গুগল Hangout এর মাধমে কথা বললে সাশ্রয় হবে।  লাইভ চ্যাট জয়েন্ট হতে পারেন না সবসময় ওয়েট ওয়েট দেখায়।  আমিও প্রায় প্রথম দিকে অনেক হতাশায় কাটাইসি অপেক্ষা র অপেক্ষা জয়েন্ট এ দিতে পারিনা এক দুইবার দুপুর ১২-১ টার মাঝে কথা বলসি জইন পায়সি তখন থেকেই যখনও কোন সমস্যা থাকলে আমি সেয় ১২-১ টার মাঝে জইন দেই সবসময় কানেক্ট পায়সি, আমার ক্ষেত্রে এরকুম দেখসি আপনারা জইন দিয়ে দেখিয়েন না হইলে আমাকে আবার ভুল ভাবিয়েন না ।  আমি জাস্ট এটায় বলছি এই সময় কানেক্ট দিলে কথা বলার তাদের সাথে সম্ভাবনা টা বেশি।
আজ এই পর্যন্ত ইনশাল্লাহ দ্বিতীয় পর্ব তে আরও অন্যান্য সমস্যার সমাধান হলে সেটি নিয়ে হাজির হব আপনাদের সামনে।  শেষ কথা একটাই বলব কোন সমস্যা হলে তাদের সাপোর্ট এ যোগাযোগ করুন তাদের কে কল করুন অথবা লাইভ চ্যাট এ জয়েন্ট করুন তাদের সাথে কথা না বললে সমস্যার সমাধান হবেনা।  আর নিশ্ছিন্তে থাকিয়েন সবসময় পেওনিয়ার একটি খুবি সেফ অ্যান্ড সেকউর অনলাইন ব্যাংকিং সিস্টেম।
কোন ভুল থাকলে খমার দৃষ্টি তে দেখার অনুরধ থাকলো।

পেওনিয়ার সম্পর্কে নতুন ইউজারদের কিছু জিঙ্গাসা-
১) পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড দিয়ে ডোমেইন হোস্টির এর মুল্য পরিশোধ করা যায়(দেশি/বিদেশি উভয় ডোমেইন হোস্টিং প্রোভাইডারদের)
উত্তর: Yes
২) পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড দিয়ে কি আপওয়ার্ক/ফ্রিলান্সার/পিপলপারআওার এই সমস্থ মার্কেটপ্লেসে বিড় কেনার জন্য ব্যবহার করা যায়?
উত্তর:. Yes
৩) পেওনিয়ার থেকে ব্যাংকে টাকা উঠানো লাভজনক নাকি পেওনিয়ার মাস্টার কার্ডের মাধ্যমে টাকা উঠানো?
উত্তর: Bank
৪) পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড এর ইয়ারলি চার্জ কত ?
উত্তর: 29.99 USD
৫) পেওনিয়ার টু ব্যাংক প্রতি ট্রানজেকশনে খরচ কত?
উত্তর: 1.87 USD
৬) পেওনিয়ার মাস্টার কার্ডের মাধ্যমে বুথ হতে টাকা উত্তোলনে খরচ কত?
উত্তর: ATM per withdraw 3$ (Decline Fee 1$)

বাংলাদেশ থেকে পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড পাওয়ার উপায়

# Payoneer কার্ড কখন অর্ডার করতে পারবেন?
যেকোনো মার্কেট-প্লেস থেকে মোট মিলিয়ে ১০০ ডলার পেওনিওর এ আসতে পারলেই আপনার ঠিকানায় কার্ড অর্ডার করতে পারবেন।
# Payoneer কার্ড চার্জ কেমন কাটে?
manthly/annually লেনদেন কোনোরকম চার্জ নেই,, চার্জ ছাড়াই payoneer কার্ড provide করে, শুধু কার্ড এর বার্ষিক চার্জ ২৯ ডলার করে কেটে নেয়।
# “পেইনিওর কার্ড” থেকে মিনিমাম কত ডলার ATM থেকে উঠানো যায়? চার্জ কেমন কাটে?
যারা atm withdraw দেয় তাদের প্রতিবারে শুধু $2.5 to 3.5 dolar লাগে, যা আপনার account type এর উপর ডিপেন্ড করে।
Check your fees detail from: Help >>> Pricing & Fees.
সাধারণত বেশিরভাগ এটিএম থেকে 500 Tk to 20,000 Tk টাকা উঠানো যায় প্রতিটি single shot এ।

মাস্টার কার্ড করতে কি কি লাগে

Payoneer নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন ও তার উত্তর:

প্রশ্ন: আমার এক ক্লায়েন্ট আমাকে সরাসরি পে করতে চাচ্ছে। এখন আমি যদি তাকে শুধু আমার Payoneer ‘র মেইল এড্রেস (যেমনঃ XXXXX@gmail.com) দেই তাহলেই কি হবে? নাকি আরো কিছু করতে হবে।
এখন যদি উনাকে আমি জাস্ট আমার অ্যাকাউন্ট দেই তাহলেই কি পে করতে পারবে? নাকি আমাকে Request এ পেমেন্ট এইভাবে করতে হবে?
উত্তর:
-হ্যা, পেয়নিয়ার মেইল আইডি দিলেই হবে, ডিরেক্ট পেমেন্ট পাবেন।
ওনার পেওনিয়ার একাউন্ট থাকলে ইমেইল দিতে পারেন যদি উনি পেওনিয়ার টু পেওনিয়ার ট্রান্সফার দেয় , না হয় ইমেল দিয়ে তো লাভ নেই ওনার যদি একাউন্ট ই না থাকে । এর চেয়ে ওনার ইমেল নিয়ে ওনাকে পেমেন্ট রিকুয়েস্ট পাঠিয়ে দিন উনি উনার কার্ড দিয়ে পে করে দিতে পারবে। তখন সুবিধা হচ্ছে- ওনার কোনো একাউন্ট থাকা লাগবে না।
প্রশ্ন: কার্ড হাত এ পাইনি, কিন্তু ব্যাংক ট্রান্সফার করতে চাচ্ছি, কিন্তু করতে পারছিনা । লেখা আসছে যে , কার্ড এক্টিভ করতে হবে ।
কিন্তু আমি কার্ড আর চাচ্ছিনা। ক্যান্সেল করা যাবে কি ? বা ডিএক্টিভেট করা যায় কার্ড ? আমার শুধু ব্যাংক ট্রান্সফার দরকার কার্ড দরকার নেই একদম আর।
এরকম সমস্যা কেউ ফেস করেছেন ? কাস্টমার সাপোর্ট এ কথা বলার পর ফিক্স করে দিয়েছিল নাকি কার্ড দিয়ে এক্টিভ করাই একমাত্র উপায়?
আমার বাবা গত বছর কার্ড অর্ডার করেছিলেন কিন্তু পোস্ট অফিস থেকে এই কার্ড আর তার কাছে পৌঁছায়নি। পরে পুনরায় অর্ডার করতে গিয়েও আর করেনি । যে কাজের জন্য প্রয়োজন ছিল সে কাজের ব্যবস্থা হয়ে গিয়েছিল।
উত্তর:
You will need to contact Payoneer support to get help regarding this issue. Please let them know that you don’t want to use the card anymore.
They will help you with it.
Thanks
শুনেছি কার্ড একটিভ না করা পর্যন্ত ১মবার ব্যাংক উইড্রে দেয়া যায় না।
প্রশ্ন: মার্কেটপ্লেস এবং মার্কেটপ্লেসের বাইরে ক্লায়েন্ট এর কাছে থেকে পেমেন্ট আনার জন্য Payoneer কার্ড থাকাটা কি বাধ্যতামূলক (Mandatory)? কার্ড ছাড়া শুধু মাত্র Payoneer একাউন্টের মাধ্যমে কি পেমেন্ট আনা যাবে?
আমার যেহেতু Payoneer কার্ড ছিল, তাই যদি নতুন করে কার্ড না ও আনি তবুও কি কার্ডের জন্য বাৎসরিক চার্জ দিতে হবে? না কি কার্ড বন্ধ করতে আমাকে কার্ড surrender এর জন্য আবেদন করতে হবে?
উত্তর সমুহ:
কার্ড ইউজ করলে ফী দিতে হবে। কার্ড না ইউজ করলে মাসিক/বার্ষিক ফী দিতে হবে না।
তবে, যারা কার্ড ইউজ করে এবং এক্সপায়ার্ড হবার পরও নুতন কার্ড এক্টিভ করে না, তাদের জন্য ব্যাংক উইড্রয়াল সার্ভিস বন্ধ হয়ে যেতে পারে।
কার্ড ইউজ করেছেন, কিন্তু এখন আর করতে চাননা – এমন হলে – সরাসরি পেওনিয়ার সাপোর্টে যোগাযোগ করতে হবে।
তখন তারা আপনার জন্য কোনো সলিউশন দিতে পারে।
আমার বেলায় যা হয়েছে:
কার্ড হোল্ডার হলে কার্ডের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে আপনি আর টাকা তুলতে পারবেন না। ব্যাংকে উত্তোলন করতে চাইলেও পারবেন না যতক্ষন না আপনি নতুন কার্ড একটিভ করেন। (যেটা আমার বেলায় হয়েছিল সেটা বললাম)। আমি কার্ড বন্ধ করার জন্যও সাপোর্টে কথা বলেছিলাম কিন্তু ওরা বলেছিল কার্ড হোল্ডার হলে এটা বন্ধ করা সম্ভব না। জানি না অন্যদের বেলায় কি বলেছে, তবে আমার বেলায় এটাই বলেছিল পেওনিয়র সাপোর্ট।
প্রশ্ন: Payoneer to payoneer usd transfer সম্ভব কি? যদি সম্ভব হয় সর্বনিম্ন কত টাকা ট্রান্সফার করা যায়? কোনো চার্জ কাটে?
উত্তর: জি, সম্ভব। সর্বনিম্ন 20$ ডলার পারবেন।
কোনো চার্জ কাটে না, Free।
প্রশ্ন: Payoneer to payoneer usd transfer সম্ভব কি? যদি সম্ভব হয় সর্বনিম্ন কত টাকা ট্রান্সফার করা যায়? কোনো চার্জ কাটে?
উত্তর:
জি, সম্ভব। সর্বনিম্ন 20$ ডলার পারবেন।
কোনো চার্জ কাটে না, Free।
প্রশ্ন: বাংলাদেশের বিভিন্ন ব্যাংকের MasterCard থেকে কি Payoneer একাউন্টে ডলার ট্র্যান্সফার করা যাবে নাকি?
উত্তর:
লোকার্ড বিডিটি কার্ড দিয়ে করা যাবেনা। পেওনিয়ার মূলত ক্রস বর্ডার পেমেন্ট রিসিভ করার জন্য সার্ভিস।
ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড দিয়ে পেমেন্ট করা করা হলে সেন্ডার ভেরিফাই করা হয়। তাই এসব পথে না গিয়ে অন্যরা যেভাবে দেশের বাইরে থেকে ইনকাম করে পেওনিয়ার দিয়ে পেমেন্ট নেয় – সেটা করাই ভালো।
প্রশ্ন: Payoneer থেকে ব্যাংকে টাকা পাঠাতে সর্বনিম্ন কত ডলার পাঠাতে হয়? কেমন চার্জ কাটে?
উত্তর:
– মিনিমাম ৫০ ডলার হলেই ব্যাংক উইড্র দেয়া যায়। যেকোনো ব্যাংক এবংকি রকেট অ্যাকাউন্টও ব্যবহার করা যায়।
– চার্জ এর ব্যাপারে বলতে গেলে কোনো ফিক্সড ফি নাই।
আর হ্যা, উইথড্র দেয়ার সময় যে রেট এবং অ্যামাউন্ট দেখায়, সেটিই আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে পাবেন। পেওনিয়ার যে রেট দেখায়, সেটা ২% এর মতো ফি কেটে দেখায়। বর্তমানে রেট ৮৩+ ।
প্রশ্ন: ঘটনা কিছু বুঝলাম না, ক্লায়েন্ট পে করল ২০০$ একাউন্ট এ দেখায় ১৯৫$,  বাকিটা গেল কোথায়?
উত্তর: USA theke pay korle 1% katar kotha
client charge pay na korle apnar kach theke katbe jodi direct payment hoi. r bank e payment korle 1% katbe.
Client jodi USA er bank diye pay kore 1% charge korb ar jodo card diye pay kore taile 3% charge korbe..ar se jodi payment er fee jodi na dey taile apnar theke fee charge korbe.
প্রশ্ন: Payoneer থেকে রকেট মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করা যায়?
উত্তর: 
রকেট অ্যাকাউন্টও একটা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট। তাই পেওনিয়ার থেকে উইড্র দেয়া যাবে এবং নিয়ম একই। উইথড্রয়ালে সময়ও লাগবে একই অর্থাৎ ২-৩ বিজনেস ডে।
*বিজনেস ডে – বলতে যেসব দিনে আমাদের দেশের ব্যাংকিং কার্যক্রম চালু থাকে, অর্থাৎ ব্যাংক খোলা থাকে(শুক্রু শনি বাদে, আর যেদিন আবেদন করবেন ঐদিনও কাউন্টে নিবেন না)

পেয়োনিয়ারে রকেট অ্যাকাউন্ট অ্যাড করার সময় খেয়াল রাখবেন:

কারেন্সি: বিডিটি (সিলেক্ট করার অপশন পেলে বিডিটি সিলেক্ট করবেন)
অ্যাকাউন্ট নাম্বার: ১২-ডিজিটের রকেট অ্যাকাউন্ট নাম্বার
ব্র্যাঞ্চ নেম: ডিবিবিএল মোবাইল ব্যাংকিং (or anything)
ব্যাংক নেম: ডাচ্-বাংলা ব্যাংক (লিস্ট থেকে প্রথমেই সিলেক্ট করতে হবে)
আর বাকি তথ্য তো আপনার নিজেরই জানা।
লিমিট: রকেটের পক্ষ থেকে *এ ধরনের ট্র্যাঞ্জেকশনের* কোনো লিমিট দেয়া নাই। আর পেওনিয়ার থেকে টাকা যাবার কারণে রকেট কোনো ক্যাশ-ইন টাইপের ফিও কাটবে না। তাই নিশ্চিন্তে উইথড্র দিতে পারেন।
টাকা জমা হলে রকেট থেকে এসএমএস পাবেন যেভাবে অন্য ট্র্যাঞ্জেকশনের বেলায় এসএমএস পান।
ধন্যবাদ।

 পেওনিয়ার এর সুবিধা

পেওনিয়ার এর সুবিধাসমুহ কি কি তা আপনি ভাল করেই জানতে পেরেছেন।
যেকোনো ইন্টারন্যাশনালি অনলাইনে টাকা লেনদেন করতে পারবেন. বিভিন্ন অনলাইন পারচেস
আবার, মার্কেটপ্লেসে কাজ করলে Payoneer to Local Bank ট্রান্সফার করতে পারবেন।

সহজ উপায়ে পেওনিয়ার একাউন্ট খোলার নিয়ম

বর্তমানে পেওনিওর একাউন্ট একটিভ করতে বেশ ঝামেলা করে। এজন্য সমাধান হচ্ছে-
দ্রুত সাপোর্টে পাবার জন্য সরাসরি কল করা ভালো। ।
আপনার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ২ভাবে যোগাযোগ করতে পারেন-
১) গুগল_হ্যাংআউট_ডায়ালার* অ্যাপ ইনস্টল করে পেওনিয়ার সাপোর্ট নাম্বারে বিনামূল্যে কল দিতে পারেন। সাপোর্ট নাম্বার: +1-646-658-3695
২) আবার স্কাইপ-এর ডায়ালপ্যাড থেকেও “ডায়াল করতে পারেন” এই নাম্বারে: +1-800-251-2521
এটা টোলফ্রি ইউএস নাম্বার হওয়ায় স্কাইপ থেকে বিনামূল্যে কল দেয়া যাবে। কোনো কল-ক্রেডিট প্রয়োজন হবে না।
সাপোর্টে call  দেওয়ার আগে হাতের কাছে আপনার পেওনিয়ার account, information(তথ্য) যেমন: কাস্টমার আইডি, বার্থ ডেট, সিকিউরিটি কোয়েশ্চেনের অ্যান্সার, ইত্যাদি হাতের কাছে রাখবেন।
** স্মার্টলি কনফিডেন্টের সাথে কথা বলে অনেক সমস্যার সমাধান নিজে করা যায়।
আমি সব সময় কল দিয়েই কথা বলি।রাতের বেলা হেংয়াউট দিয়ে কল দেয়া যায় ফ্রিতে।৩০ ৪০ মিনিট কথা বলে এমনও সমস্যার সমাধান করেছি যা চ্যাটে করলে ১৫ দিন লাগতো
আপনি হেংয়াউট দিয়ে বাংলাদেশ রাত ৯ টায় কল দিবেন।এটাই আমার অভিজ্ঞতা থেকে প্রাপ্ত ভাল সময়।সব সময় এই টাইমে কল ধরে তারা
বি:দ্র: পেয়নিয়র এর রুলস দিন দিন আপডেট হচ্ছে। তাই আপডেট এসে থাকলে অফিশিয়াল সাইটে জানানো হবে। পোস্টটিতে কোনো ভুল থাকলে জানাতে ভুলবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!
Close
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker