পশু পাখি পালন পদ্ধতি

মৌমাছি চাষের পদ্ধতি (প্রশিক্ষণ কেন্দ্র)

farming-methods-honey-bee

মৌমাছিরা প্রকৃতিতে বসবাসকারী পোকামাকড়। তারা তাদের রানী এবং অন্যান্য মহিলা আত্মীয়দের সাথে উপনিবেশ গঠন করে এবং এই উপনিবেশগুলি অনেক জায়গায় পাওয়া যায়। মৌমাছিরা ফুল থেকে অমৃত এবং পরাগ সংগ্রহের জন্য তাদের গুরুত্বপূর্ণ কাজের জন্য পরিচিত, তবে তারা তাদের বসবাসের সময় এবং স্থান থেকে তথ্য সংগ্রহ করে, যেমন প্লাস্টিকের ডালপালা, তাজা ফল এবং এলাকা-নির্দিষ্ট খাবার।

একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সংগ্রহ করা হয় যা তাৎক্ষণিক স্টোরেজ এবং ভবিষ্যতের সম্পদ হিসাবে মধু যোগ করে। সংগৃহীত পরাগ মৌমাছি, বিশেষ করে বয়স্ক মৌমাছিদের প্রোটিন খাদ্য চাহিদা মেটাতেও ব্যবহৃত হয়।

মৌমাছি আমাদের পরিবেশের জন্য অমূল্য, এবং উদ্ভিদের পরাগায়নে এবং আমাদের মধু সরবরাহ করতে সাহায্য করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তারা পর্যবেক্ষণ করার জন্য আকর্ষণীয় প্রাণী, কারণ তাদের যোগাযোগ এবং নেভিগেশন দক্ষতা অসাধারণ। সুতরাং, পরের বার যখন আপনি আপনার বাগানে বা স্থানীয় এলাকায় কিছু মৌমাছি দেখবেন, এই আশ্চর্যজনক ছোট প্রাণীগুলির প্রশংসা করার জন্য একটু সময় নিন।

Farming methods honey bee in Bangla: মধু মৌমাছি পালন, যা মৌমাছি পালন নামেও পরিচিত। এতে মধু, মোম এবং অন্যান্য মৌমাছি পণ্য উৎপাদনের জন্য মধু মৌমাছি গৃহপালন ও ব্যবস্থাপনায় জড়িত। মৌমাছি পালনের কিছু সাধারণ পদ্ধতির মধ্যে রয়েছে:

  • ল্যাংস্ট্রোথ আমবাত: এটি মৌমাছি পালনের সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত পদ্ধতি, যার মধ্যে রয়েছে স্ট্যান্ডার্ডাইজড কাঠের বাক্স, যাকে ল্যাংস্ট্রোথ হাইভস বলা হয়, যাতে মৌমাছির সহজে পরিদর্শন এবং পরিচালনার জন্য অপসারণযোগ্য ফ্রেম রয়েছে।
  • টপ-বার আমবাত: এই পদ্ধতিতে মৌমাছিদের চিরুনি তৈরি করার জন্য ফ্রেমের পরিবর্তে অনুভূমিক শীর্ষ দণ্ড সহ আমবাত ব্যবহার করা জড়িত। টপ-বার আমবাতগুলিকে সাধারণত মৌমাছির জন্য আরও প্রাকৃতিক এবং কম বিঘ্নকারী বলে মনে করা হয়।
  • ওয়ারের আমবাত: এই পদ্ধতিটি, “উল্লম্ব টপ-বার হাইভস” নামেও পরিচিত, এতে উল্লম্ব টপ বার এবং এমন একটি নকশা যা বন্য মৌমাছির প্রাকৃতিক নীড়ের নকল করে আমবাত ব্যবহার করে। এই পদ্ধতিটি মৌমাছির জন্য আরও প্রাকৃতিক এবং কম বিঘ্নকারী বলে মনে করা হয়।
  • প্রাকৃতিক/বন্য মৌমাছি পালন: এই পদ্ধতিতে আমবাতে গৃহপালিত না হয়ে তাদের প্রাকৃতিক আবাসস্থলে বন্য মৌমাছির উপনিবেশের পর্যবেক্ষণ এবং ন্যূনতম ব্যবস্থাপনা জড়িত।

খরচ, দক্ষতা, ব্যবস্থাপনার সহজতা এবং মৌমাছির স্বাস্থ্য এবং আচরণের উপর প্রভাবের ক্ষেত্রে প্রতিটি পদ্ধতির নিজস্ব সুবিধা এবং অসুবিধা রয়েছে।

যেভাবে মৌমাছি চাষের ব্যবসা শুরু করবেন

মৌমাছি পালন একটি অবিশ্বাস্যভাবে ফলপ্রসূ শখ, তবে এটি সঠিক পরিবেশে করা দরকার। মৌমাছির বাক্স রাখার জন্য নির্বাচিত স্থানটি অবশ্যই ছায়াযুক্ত, শুষ্ক এবং মৌমাছির খাদ্য সরবরাহের জন্য উপযুক্ত গাছপালা দিয়ে ঘেরা হতে হবে। প্রয়োজনে জরুরী ভিত্তিতে কিছু মৌসুমী গাছ লাগানো যেতে পারে। নির্বাচিত স্থানের আশেপাশে যেন কোন শব্দ বা ধোঁয়া জেনারেটর না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

যে কাঠের বাক্সে মৌমাছি রাখা হয় তা বিভিন্ন অংশ দিয়ে তৈরি। মেঝে কাঠ, নার্সারি, মৌচাক, ঢাকনা এবং ছাদ একটি মৌভারনের বিভিন্ন অংশ। মধু ঘর ও নার্সারিতে সারি সারি কাঠের ফ্রেমে সাজানো আছে। এই ফ্রেমেই মৌমাছিরা চক তৈরি করে। গাছের গর্ত থেকে মৌমাছি ও তাদের মৌচাক সংগ্রহ করার পর বাক্স দেওয়া হয়। একটি মৌমাছি উপনিবেশে শুধুমাত্র একটি রাণী মৌমাছি, কিছু পুরুষ এবং বেশিরভাগ কর্মী মৌমাছি থাকে। কর্মী মৌমাছিরা চক তৈরি, বাচ্চা লালন-পালন, মধু ও পরাগ সংগ্রহ ইত্যাদি সমস্ত কাজ করে।

bee
bee

যেভাবে মৌমাছি চাষের ব্যবসা শুরু করবেনঃ

একটি মৌমাছি পালন ব্যবসা শুরু করার জন্য বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ জড়িত, যার মধ্যে রয়েছে:

  • গবেষণা: বই পড়ে, কর্মশালায় এবং ক্লাসে যোগ দিয়ে এবং অভিজ্ঞ মৌমাছি পালনকারীদের সাথে কথা বলে মৌমাছি পালন সম্পর্কে যতটা সম্ভব শিখুন। মৌমাছি পালন সংক্রান্ত স্থানীয় নিয়মকানুন ও আইন বুঝুন।
  • একটি ব্যবসায়িক পরিকল্পনা তৈরি করুন: আপনার লক্ষ্য বাজার সনাক্ত করুন, আপনি যে পণ্য এবং পরিষেবাগুলি অফার করবেন তা নির্ধারণ করুন এবং আপনার খরচ এবং সম্ভাব্য লাভের অনুমান করুন।
  • সরঞ্জাম এবং মৌমাছি প্রাপ্ত করুন: কিনুন বা তৈরি করুন প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম, যেমন আমবাত, প্রতিরক্ষামূলক গিয়ার এবং সরঞ্জাম। একটি স্বনামধন্য উৎস থেকে মৌমাছির উপনিবেশগুলি কিনুন, যাকে nucs বা প্যাকেজও বলা হয়।
  • আপনার এপিয়ারি স্থাপন করুন: আপনার আমবাতগুলির জন্য একটি উপযুক্ত স্থান খুঁজুন, বিশেষত অমৃত এবং পরাগের উত্সে অ্যাক্সেস সহ এবং উচ্চ ট্রাফিক এলাকা থেকে দূরে।
  • আপনার মৌমাছির রক্ষণাবেক্ষণ এবং যত্ন নিন: নিয়মিত আপনার মৌমাছি পরীক্ষা করুন, কীটপতঙ্গ এবং রোগ ব্যবস্থাপনা করুন এবং উপযুক্ত সময়ে মধু ও অন্যান্য পণ্য সংগ্রহ করুন।
  • আপনার পণ্য বাজারজাত করুন এবং বিক্রি করুন: আপনার মধু এবং অন্যান্য মৌমাছির পণ্য বাজারজাত ও বিক্রি করার জন্য একটি ওয়েবসাইট, সোশ্যাল মিডিয়া উপস্থিতি এবং/অথবা একটি স্থানীয় বাজার তৈরি করুন।
  • ক্রমাগত নিজেকে শিক্ষিত করুন: মৌমাছি পালন, নতুন কৌশল এবং নতুন পণ্য সম্পর্কে শিখতে থাকুন, এটি আপনাকে আপডেট থাকতে এবং আপনার মৌমাছি পালন ব্যবসাকে উন্নত করতে সহায়তা করবে।

বাংলাদেশ মৌমাছি পালন ইনস্টিটিউট কোথায় জেনে নিন- বাংলাদেশ মৌমাছিপালন ইনস্টিটিউট হলো মাঠ পর্যায়ে দক্ষ জনশক্তি পরিচালিত গবেষণা এবং সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলির দীর্ঘ অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে বৈজ্ঞানিক উপায়ে মৌমাছিপালনের একটি পূর্ণাঙ্গ কর্মসূচি উদ্ভাবনের লক্ষ্যে CUSO ও CIDA-র যৌথ-উদ্যোগের ফল।   (Bangladesh Institute of Apiculture/BIA)  মৌমাছিপালনের ওপর গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে ১৯৮১ সালে ঢাকায় এটি প্রতিষ্ঠিত হয়।

মৌমাছির হেল্পলাইন

  • মৌমাছি চাষ ও প্রশিক্ষনের জন্য যোগাযোগ করতে পারেন মতি এন্ড সন্স (একটি বিসিক প্রকল্প)
  • ৪৯/৩, লুৎফর রহমান লেন, সুরিটোলা, কোতয়ালী, ঢাকা
    মোবাইল: ০১৭১২-০৬৯০৬২
  • এছাড়া মৌমাছি পালন সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে বিসিকের যে কোনো কার্যালয়ে যোগাযোগ করা যেতে পারে।
  • আরো দেখুন- মৌমাছি চাষ বই pdf

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker