অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কোর্স

(07) ডোমেইন ও হোস্টিং গাইডলাইন – ক্রয় ও তা সেটাপ পদ্ধতি

যেহেতু আমরা একটা বড় প্লানিং নিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করতেছি,সেহেতু আমরা অবশ্যই cms চয়েজ করার ক্ষেত্রে wordpress চয়েজ করব। আর ডোমেইন হোস্টিং ক্রয় করার ক্ষেত্রে ভাল একটি সার্ভিস প্রোভাইডারের শরণাপন্ন হব।

ডোমেইন হোস্টিং কেনার আগে জেনে নিন:

» প্রথমে ডোমেইন কিনে তারপর হোস্টিং কিনবে।
» https://www.achieve.org/ এই সাইট থেকে চেক করে শিউর হয়ে নেব যে সিলেক্ট করা ডোমেইনটা expire domain কিনা। expire domain না কেনাই বেটার যদি রিস্ক/এত এক্সপার্টলি রিসার্চ ঝামেলায় না যেতে চান।
কারণ expire domain এর ভাল ও খারাফ উভয় দিক আছে যা নির্ভর করে পূর্বের সাইটটা ডেভেলপিং হিস্ট্রি কেমন ছিল তার উপর। এজন্য তাদের পূর্বের সাইটের ব্যকলিংক ভাল নাকি খারাফ তা চেক করে নেব। খারাফ বা কোয়ালিটি সম্পন্ন ব্যাকলিংক না থাকলে ঐ ডোমেইন আমরা নেব না। যেমন – আমি অনেকদিন ঘেটে erareview.com এক্সপায়ার ডোমেনটি খুজে বের করেছিলাম। কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে- ২০১৩ সালের এ ডোমেনটির স্পাম স্কোর ছিল ২০% যা আমি moz দিয়ে চেক করে জেনেছিলাম। তাএ এ ডোমেইনটি ক্রয় করা হতে বিরত থাকে এবং নতুন ডোমেইন কিনি।
» https://www.expireddomains.net/ সাইট থেকে ফ্রিতে এক্সপায়ার ডোমেইনগুলো পাওয়া যায়।
» ডোমেইন এর ssl certificate নেওয়া।
» ডোমেইন ২-৩বছরের জন্য একসাথে কিনে ফেললে ভাল,এতে গুগল ঐ সাইটে কিছুটা হলে অগ্রাধিকার দেয়।

যেখান থেকে ডোমেইন-হোস্টিং কিনবেনঃ

» • ডোমেইন-হোস্টিং কেনার ক্ষেত্রে paypal বা এ জাতীয় কার্ড থাকলে epik, namecheap সাজেস্ট করব। কেননা এতে সস্তা+লাইভ চ্যাট সাপোর্ট অপশন আছে।
• আর এসব কার্ড না থাকলেও সমস্যা নেই, সমাধান আছে— তখন international Epik.com সাজেস্ট করব কারণ এখান থেকে ক্রয় করার জন্য epik  বাংলাদেশি ফেচবুক পেজ হতে কথা বলে ডলার লোড করা যায়। এছাড়া, dianahost বা exonhost বা adnserver সাজেস্ট করব। কেননা এতে বিকাশ দিয়েও পেমেন্ট করা যায়।
» সাজেশন হচ্ছে, একই জায়গা হতে ডোমেইন-হোস্টিং কেনা ভাল।

ডোমেইন নেম সিলেকশন এর সাজেশন:

» এক্সাক্ট কি-ওয়ার্ড এর সেম নাম দিয়ে ডোমেইন নেম(EMD) কেনা উচিৎ নয়।
» partiial Match domain নেম সিলেক্ট করা। অর্থাৎ কি-ওয়ার্ডের সাথে কিছু মিল থাকবে এবং কিছু general keyword থাকবে।
» সুন্দর রিলেভ্যান্ট একটা ডোমেইন নাম সিলেক্ট করা। Domain কেনার সময় অবশ্যই আপনার প্রতিষ্ঠান বা আপনার নামের সাথে মিল রেখে একটু রিসার্চ করে ডোমেইন কিনবেন।
» Top level tld ডোমেইন কেনার চেষ্টা করুন যেমন .COM, .Net, .ORG, .Info এই ধরনের এক্সটেনশন দিয়ে ডোমেইন কিনবেন।

ডোমেইন কেনার আগে যা যা খেয়াল রাখবেন:

১. যে company থেকে domain ক্রয় করবেন সেখানে যাতে ইজিলি payment করে renew করার সিস্টেম থাকে।

২.  অন্যকে দিয়ে ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন করাবেন না। অবশ্যই নিজের নামে একাউন্ট খুলে নিজেই নিজের ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন করুন।

৩. ডোমেইন কেনার সময় রিনিউ ফি দেখে নিবেন। কিছু কিছু কোম্পানি কম দামে ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন করতে দেয় কিন্তু রিনিউ এর সময় অনেক টাকা আপনার কাছে থেকে চার্জ করতে পারে। তাই দমেই কেনার আগেই দেখে নিবেন ডোমেইন এর রিনিউ চার্জ কত।

4. trusted কোম্পানি থেকে ডোমেইন কিনবেন যেন full control পান। আপনি যে কোম্পানি থেকে ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন করেন না কেন তারা কন্ট্রোল তারা দেয় কিনা তা যাচাই করে নিবেন।

5. চেষ্টা করবেন ডোমেইন এর সাথে Whois protection বা ID protection নেওয়ার। যদিও অল্প কিছু টাকা বেশী খরচ হবে কিন্তু আপনার private information গুলো secure থাকবে।

6. কম দাম পেলে হুট করে আজেবাজে কোম্পানি থেকে একটা ডোমেইন কিনে ফেললেন- এই ধরনের ভুল করবেন না।

ডোমেইন-হোস্টিং সেটাপ পদ্ধতি ও ধাপসমুহ:

» ডোমেইন হোস্টিং যেখান থেকে কিনবেন তারা আপনাকে মেইল করে ইউজারর নেম ও পাসওয়ার্ড দিয়ে দিবে। যা দিয়ে আপনি পরবর্তী ধাপের ডোমেইন সেটিং ও হোস্টিং সেটিং এর পরবর্তী কাজগুলো করবেন।
» ফাইনালি হোস্টিং এর মধ্যে থাকা Softaculous apps installer অপশন ব্যবহার করে wordpress install করবেন ও সাইট প্রস্তুত করবেন।

ডোমেইন সেটিং :

ডোমেইন নেম এর কিছু সেটিং রয়েছে যা হোস্টিং এর সাথে কানেক্ট করা লাগে:
» DNS Management সেটিং
» বলে রাখা ভাল, existing হোস্টিং এ অন্য আরেকটি ডোমেইন-নেম কানেক্ট করতে চাইলে হোস্টিং সেটিং এর addon domains অপশন ব্যবহার করতে হয়।
» সিকিউরিটি দরকার মনে করলে SSL Certificate চালু করা(gogetssl.com/positivessl.com) ও
» WhoisGuard চালু করা (http://who.is)

হোস্টিং সেটিং :

» hosting এর cpanel এর গিয়ে wordpress এ গিয়ে খুব সহজেই আপনার domain টি হোস্টিং এ কানেক্ট করে নিতে পারেন।

হোস্টিং ইমেইল ও ইমেইল ফরওয়ার্ডঃ
» হোস্টিং থেকে আমরা  ইমেইল একাউন্ট তৈরি করতে পারব। এজন্য যা করব-
» ইমেইল ফরওয়ার্ড অপশন ব্যবহার করে hosting এ আসা মেইলগুলো GMail account এ পাওয়া যায়। এজন্য যা করব-
» হোস্টিং মেইল এর নামে GMail থেকে মেইল পাঠানো যায়। এজন্য যা করব-
gmail>setting>accounts and input এ  send mail as এ add another email address থেকে hosting mail এড করতে পারব।

হোস্টিং কেনার আগে যা যা দেখবেনঃ

» আপনি যে হোস্টিং কোম্পানি বা যার কাছ থেকে হোস্টিং কিনতেছেন, তারা আপনাকে Cpanel control দিচ্ছে কিনা তা দেখে নিবেন।
» অনেকে Direct Admin cpanel দেয়। ওইটা আপনার cpanel control দিবে না। তাই ঐটা কিনবেন না।

যে যে ধরনের হোস্টিং রয়েছে-
» সিপ্যানেল
» কন্ট্রোল প্যানেল
» স্টেপসিপি কন্ট্রোল প্যানেল

হোস্টিং কেনার ক্ষেত্রে ব্যান্ডউইথ যে পরিমাণ দেখে কিনবেনঃ

ব্যান্ডউইথ: অনেক হোস্টিং প্রোভাইডার রয়েছে যারা ব্যান্ডউইথ লিমিট করে দেয়। তাই অনলিমিটেড টাইপের হোস্টিং কিনবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!
Close
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker