অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কোর্স

(09) ওয়েবসাইটে কন্টেন্ট পাবলিশ করা (অ্যামাজন সাইটের জন্য)

বেশিরভাগ সাইট অসফল হওয়ার ২টা কারণের মধ্যে ২ নাম্বার কারণ হচ্ছে বাজে কন্টেন্ট(১ম কারণ ভুল কি-ওয়ার্ড সিলেকশন। ভুল কি-ওয়ার্ড নিয়েও সাইট র্যাংক করা সম্ভব। কিন্তু বাজে কন্টেন্ট হলে কোনো আশা নেই) । তাই কন্টেন্ট এর ব্যাপারে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।

১ম কয়েকদিন ৮,০০০-১০,০০০ হাজার ওয়ার্ডের কন্টেন্ট আর্টিকেল পোস্ট দেওয়ার চেষ্টা করব। এরপর নিয়মিত নরমাল আর্টিকেল পোস্ট করব।

# content published করার ক্ষেত্রে info article ও buying article গুলোর মধ্যে normal article এর পাশাপাশি pillar article যেন থাকে।
# মনে রাখবেন, যেসকল সাইটে buying article এর চেয়ে info article বেশি পরিমাণে থাকে, ঐসকল সাইটকে গুগল বেশি পরিমাণে গুরুত্ব দেয়।

ওয়েবসাইটে আর্টিকেল পাবলিশ করার নিয়মঃ

এখন আমরা ওয়েবসাইট এ আর্টিকেল পাবলিশ করার পদ্ধতি/নিয়ম জানব। ২ উপায়ে আর্টিকেল পাবলিশ করা যায়।
১) add posts অপশন ব্যবহার করার মাধ্যমে।(নরমাল আর্টিকেল পাবলিশ)
২) add pages অপশন ব্যবহার করার মাধ্যমে।(ল্যান্ডিং পেজ আর্টিকেল পাবলিশ)

# Dashboard Setting:

ওয়েবসাইটে এসইও ফ্রেন্ডলি কন্টেন্ট পাবলিশ করার নিয়ম:

 আর্টিকেল পাবলিশ করার ক্ষেত্রে আমরা আমাদের সাইটটাকে ২ভাগে/ ২টা বা তার অধিক মেনু সেকশনে ভাগ করব।
(১) সাধারণ পোস্ট আর্টিকেল (information content) গুলো যাবে blog সেকশনে।
(২) ল্যান্ডিং পেজ আর্টিকেল (review content) গুলো যাবে Home পেজ সেকশনে।
এজন্য যা করতে হবেঃ
ওয়েবসাইট এর add pages এ গিয়ে ২টি Page create করব:
একটি      » Home
আরেকটি » Blog
এর পরবর্তী ধাপে Setting এর Reading অপশনে গিয়ে—
» Your homepage displays অপশনটা চেঞ্জ করে static page সিলেক্ট করে দেব। এবং
» Homepage কে Home হিসেবে সিলেক্ট করব ও
» Post pages কে Blog দেব।
তাহলে, এক্ষেত্রে posts থেকে আর্টিকেল পাবলিশ করলে তা blog সেকশনে চলে যাবে।

ল্যান্ডিং পেজ আর্টিকেল পাবলিশ/তৈরির পদ্ধতিঃ

Dashboard এর add pages এ ক্লিক করে যেভাবে page create করব:-
  • সুন্দর একটা টাইটেল থাকবে(এসইও ফ্রেন্ডলি)
  • permalink এডিট করে url লিংকটা ইউজার ফ্রেন্ডলি শর্ট করব।
  • কন্টেন্ট স্থানে কন্টেন্ট আর্টিকেল লিখব। (সাইট শুরুর ১ম দিকে কন্টেন্ট লেখার স্থানগুলো ফাকা রেখে page ক্রিয়েট করে ফেলতে পার, পরে কন্টেন্ট লিখা শেষ হলেই পাবলিশ করব। এক্ষেত্রে এডভান্স আগ থেকে url ক্রিয়েট থাকলে index ও র্যাংকিং এ কিছুটা হলেও সুবিধা পাবে হয়ত)
  • ফাইনালি, সেভ/পাবলিশ করব।
  • এভাবে ভিন্ন উপায়ে ল্যান্ডিং পেজ ক্রিয়েটের মাধ্যমে  আর্টিকেল পাবলিশ করা যায়।

# ওয়েবসাইট ক্যাটাগরি/মেনু তৈরির পদ্ধতিঃ

সুন্দর করে প্রফেশনালি পেজ অপশন দ্বারা মেনু তৈরি করে মেনু/ক্যাটাগরি তে অন্যান্য পেজ আর্টিকেলগুলো রাখার পদ্ধতি নিয়ে এখন আমরা জানব।

 • আমাদের ওয়েবসাইটে যতগুলো মেনু ক্যাটাগরি হবে সেগুলোর প্রত্যেকে মেনু ক্যাটাগরির জন্য একটি করে শর্ট টাইটেল ও permalink যুক্ত ব্লাংক page create করব। তাহলে ঐ পেজই হবে একটা ক্যাটাগরি মেনু। বি:দ্র: এক্ষেত্রে এখানে তৈরিকৃত মেনু ব্লাংক পেজটা আমরা কখনো র্যাংক করাবো না ঠিকই, তবে এ পেজ দ্বারা কাজের সুবিধার জন্য সুন্দর একটা পেজ তৈরি হল- এটাই আসল কথা।
• এরপর, Dashboard এর Appearance এ menu তে ডুকলে মেনু গুলো এডিট করতে পারব। এক্ষেত্রে,
Blog সেকশনের কোনো কিছু মেনুতে দেব না। কারণ এ সেকশনে অলরেড়ি ক্যাটাগরি অপশন থাকে।
বলে রাখা ভাল, Home ও Blog এর মত করে প্রয়োজন অনুসারে অন্যান্য মেনু গুলো তৈরি করব। এরপর ঐ মেনুর আন্ডারে তার সকল পেজ আর্টিকেলগুলো drag করে সাব মেনু আকারে যুক্ত করব। অর্থাৎ Dashboard এর Appearance এ তৈরিকৃত menu এর আন্ডারে সকল পেজ আর্টিকেল রাখব।

কাজের সুবিধার্থে জেনে নিই:
  • আর্টিকেল পাবলিশ করার আগে সুন্দরভাবে ডিজাইন করতে wp editor এর পরিবর্তে thrive architect প্লাগিন টা ব্যবহার করতে পারেন।
  • thrive architect প্লাগিন আলাদা পোস্ট করা হয়েছে, কেননা এ প্লাগিনটা আমাজন এফিলিয়েট পোস্ট করার ক্ষেত্রে খুবই খুবই unique কার্যকরী একটা প্লাগিন।
  • copyright free pic download করার জন্য pixabay এর মত সাইট গুলো থেকে পিক ইউজ করব।
  • কোনো কষ্ট ছাড়াই amazon সাইট হতে সরাসরি পিক ইমপোর্ট করতে AAWP প্লাগিন ব্যবহার করতে পারেন।
  • compressor.io সাইটটি ব্যবহার করে image size কমিয়ে নিতে পারেন।

# search ctr ফোকাস meta description লিখার পদ্ধতি:
» Yoast SEO দ্বারা- লিখিত টাইটেল,meta description এসব green না হওয়া পর্যন্ত লিখব।
» টাইটেল ও meta description খুব আকর্ষণীয়ভাবে লিখব।

# আর্টিকেল পোস্টিং এ table of content এর হেডিং এ যা লিখব তার নমুনা গুলো-
  • What i like
  • What i don’t like
  • Pros
  • Cons
  • Positive things
  • Negetives things
  • things i like
  • things i din’t like
প্রভৃতি এভাবে নিজের মত করে table of content বানাব।

# কোন আর্টিকেল লিংকে কতগুলো ওয়ার্ড রয়েছে তা যেভাবে গণনা করা যায়:
  • ১) আর্টিকেল কপি করে ms word এ পেস্ট করে
  • ২) অথবা, wordcounter.net এর মাধ্যমে। কোন ওয়ার্ড কতবার ব্যবহার হয়েছে তাও দেখতে পারবেন।

# কন্টেন্ট পাবলিশের আগে যা যা করতে পারেন:
  • Grammarly দিয়ে চেক
  • copyscape দিয়ে চেক (আর্টিকেল কপিরাইট চেক করার পেইড টুলস) অথবা,
  • smallseotools দিয়ে চেক (আর্টিকেল কপিরাইট চেক করার পেইড টুলস)
  • SEO Audit tools দিয়ে চেক
  •  বড় সাইট গুলোকে লিংক দেওয়া
  •  search ctr ফোকাস ডেসক্রিপশন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!
Close
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker